ইমাম আলি (আ.)এর ফযিলত সংক্রান্ত হাদিস- ২

উম্মতের পিতা রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ حَقُّ عَلِيٍّ عَلَي الْمُسْلِمِينَ حَقُّ الوَالِدِ عَلَي الْوَلَدِ. মুসলমানদের ওপর আলীর অধিকার,সন্তানের ওপর পিতার অধিকারের ন্যায়।

ইমাম আলি (আ.)এর ফযিলত সংক্রান্ত হাদিস-

ইমাম আলি, হজরত আলি. (আ.), খলিফা আলি, হাদিস, রেওয়ায়েত

এস, এ, এ

১.  উম্মতের পিতা

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

حَقُّ عَلِيٍّ عَلَي الْمُسْلِمِينَ حَقُّ الوَالِدِ عَلَي الْوَلَدِ.

মুসলমানদের ওপর আলীর অধিকার,সন্তানের ওপর পিতার অধিকারের ন্যায়। (আর রিয়াদুন্ নাদরাহ ৩:১৩০,ইমাম আলী– ইবনে আসাকির ২:২৭২/৭৯৮-৭৯৯)

২. ইবাদতের সারসত্য

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

ذِكْرُ عَلِيٍّ عِبَادَةٌ.

আলীকে স্মরণ করা ইবাদততুল্য। (কানযুল উম্মাল ১১,৬০১/৩২৮৯৪,আল ফেরদৌস ২:২৪৪/৩১৫১,ওসীলাতুল মুতাআব্বেদীন খ: ৫ আল কাসাম ২:১৬৮)

৩. মজলিসের সৌন্দর্য

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

زَيِّنُوا مَجَالِسَكُمْ بِذِكْرِ عَلِيٍّ.

তোমাদের মজলিসগুলোকে আলীর নাম উচ্চারণের মাধ্যমে সৌন্দর্যমণ্ডিত করো। (আল মানাকিব– ইবনুল মাগাযেলী : ২১১/২৫৫)

৪.  সর্বদা সত্যের সাথে

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

رَحِمَ اللهُ عَلِيّاً ، اَللَّهُمَّ أَدِرِ الْحَقَّ مَعَهُ حَيْثُ دَارَ.

আল্লাহ আলীর ওপর রহমত বর্ষণ করুন! হে আল্লাহ! আলী যেখানেই আছে সত্যকে তার সাথে ঘোরাও। (আল মুস্তাদরাক-হাকেম ৩:১২৪,সুনানে তিরমিযী ৫:৬৩৩/৩৭১৪,ইমাম আলী (আ.)– ইবনে আসাকির,৩:১৫১/১১৬৯-১১৭০)

৫. রাসূলুললাহ (সা.)-এর গোপন রহস্যের আধার

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

صَاحِبُ سِرِّي عَلِيُّ ابْنُ أَبِي طَالِبٍ.

আলী আমার গোপন রহস্যকথার একমাত্র আধার। (আল ফেরদৌস ২:৪০৩/৩৭৯৩,আল ইমাম আলী (আ.)– ইবনে আসাকির ২:৩১১/৮২২)

৬. রাসূলুল্লাহ (সা.)-এর জ্ঞানের ভাণ্ডার

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

عَلِيٌّ خَازِنُ عِلْمِي.

আলী আমার জ্ঞানের ভাণ্ডার। (শারহে নাহজুল বালাগা– ইবনে আবিল হাদীদ ৯:১৬৫)

৭. সৃষ্টিকুলের শ্রেষ্ঠ

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

عَلِيٌّ خَيْرُ الْبَرِيَّةِ.

আলী সৃষ্টিকুলের সেরা। (আল ইমাম আলী (আ.)– ইবনে আসাকির ২:৪৪৩/৯৫৯,মানাকিবে খারেযমী : ৬২)

৮. মানুষের মধ্যে শ্রেষ্ঠ

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

عَلِيٌّ خَيْرُ الْبَشَرِ، مَنْ أَبَي فَقَدْ كَفَرَ.

আলী সর্বশ্রেষ্ঠ মানুষ,যে তা মানবে না সে নিঃসন্দেহে কাফের। (সিয়ারু আ’ লামুন নুবালা ৮:২৫০,ইমাম আলী (আ.)-ইবনে আসাকির ২:৪৪৪/৯৬২-৯৬৬,তারীখে বাগদাদ ৭:৪২১)

৯. জ্ঞানের আধার

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

عَلِيٌّ عَيْبَةُ عِلْمِي.

আলী আমার জ্ঞানের আধার। (আল জামেউস্ সাগীর ২:১৭৭,শারহে নাহজুল বালাগা– ইবনে আবিল হাদীদ ৯:১৬৫)

১০. সর্বদা কুরআনের সাথে

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

عَلِيٌّ مَعَ الْقُرْآنِ وَ  الْقُرْآنُ مَعَ عَلِيٍّ.

আলী কুরআনের সাথে আর কুরআন আলীর সাথে। (আল মুস্তাদরাক-হাকেম ৩:১২৪,কানযুল উম্মাল ১১:৬০৩/৩২৯১২)

১১. রাসূলুল্লাহ (সা.)-এর নিকটে

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

عَلِيٌّ مِنِّي بِمَنْزِلَةِ رَأسِي مِنْ بَدَني.

আমার নিকটে আলী আমার শরীরে যুক্ত আমার মাথার ন্যায়। (তারীখে বাগদাদ ৭:১২,কানযুল উম্মাল ১১:৬০৩/৩২৯১৪)

১২.আল্লাহর নিকটে

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

عَلِيٌّ مِنِّيكَمَنْزِلَتِي مِنْ رَبِّي.

আমার নিকটে আলীর মর্যাদা হলো যেমন আমার প্রতিপালকের নিকটে আমার মর্যাদা। (আস সাওয়ায়িকুল মুহরিকা :১৭৭,যাখায়িরুল উক্বা : ৬৪)

১৩. কেয়ামতের দিন বিজয়ী

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

عَلِيٌّ وَ شِيعَتُهُ هُمُ الْفَائِزُونَ يَوْمَ الْقِيَامَةِ.

আলী এবং তাঁর অনুসারীরা নিঃসন্দেহে কেয়ামতের দিন বিজয়ী। (আল ফেরদৌস ৩:৬১/৪১৭২,ওয়াসীলাতুল মুতাআব্বেদীন খ:৫,আল কিসম ২:১৭০)

১৪. বেহেশতের তারকা

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

عَلِيٌّ يَزْهَرُ فِي الْجَنَّةِ كَكَوْكَبِ الصُّبْحِ لِأَهْلِ الدُّنْيَا.

আলী বেহেশতের মধ্যে দুনিয়াবাসীর জন্য ভোরের তারকার ন্যায় উজ্জ্বল। (আল ফেরদৌস ৩:৬৩/৪১৭৮,কানযুল উম্মাল ১১:৬০৪/৩২৯১৭)

১৫. তাকে কষ্ট দিও না

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

مَنْ آذَي عَلِيّاً فَقَدْ آذَانِي.

যে ব্যক্তি আলীকে কষ্ট দেয় সে আমাকে কষ্ট দেয়। (মুসনাদে আহমাদ ৩:৪৮৩,আল মুস্তাদরাক-হাকেম ৩:১২২,দালায়িলুন নব্যুওয়াত ৫:৩৯৫,আল ইহ্সান- ইবনে হাববান ৯:৩৯/৬৮৮৪)

১৬. আল্লাহর অস্তিত্বে মিশে আছে

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

لَاتَسُبُّوا عَلِيّاً، فَإِنَّهُ مَمْسُوسٌ فِي ذَاتِ اللهِ.

তোমরা আলীকে গালমন্দ করো না। সে আল্লাহর সত্তায় মিশে গেছে। (আল মু’ জামুল কাবীর-তাবারানী ১৯:১৪৮/৩২৪,হিল্লিয়াতুল আউলিয়া ১:৬৮,কানযুল উম্মাল ১১:৬২১/৩৩০১৭)

১৭. মুনাফিকরা তাঁকে ভালোবাসে না

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

لَا يُحِبُّ عَلِيّاً مُنَافِقٌ، وَ لاَ يُبْغِضُهُ مُؤمِنٌ.

মুনাফিকরা আলীকে ভালোবাসে না,আর মুমিন তাঁকে ঘৃণা করে না। (সুনানে তিরমিযী ৫:৬৩৫/৩৭১৭,আর রিয়াদুন নাদরাহ ৩:১৮৯)

১৮. রাসূলুল্লাহ (সা.)-এর হক (অধিকার) পূরণকারী

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

عَلِيٌّ مِنِّي وَ أَنَا‌مِنْ عَلِيٍّ، وَلَا يُؤَدِّي عَنِّي إِلَّا أَنَا أَوْ عَلِيٌّ.

আলী আমা থেকে আর আমি আলী থেকে,আমি আর আলী ব্যতীত কেউই আমার (রেসালাতের) অধিকার পূরণ করেনি। (মাসাবিহুস সুন্নাহ ৪:১৭২/৪৭৬৮,সুনানে তিরমিযী ৫:৬৩৬/৩৭১৯,মুসনাদে আহমাদ ৪:১৬৪)

১৯. মুসলমানদের সরদার

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

عَلِيٌّ سَيِّدُ الْمُسْلِمِينَ، وَ إِمَامُ الْمُتَّقِينَ، وَ قَائِدُ الْغُرِّ الْمُحَجَّلِينَ.

আলী মুসলমানদের সরদার,পরহেযগারদের নেতা এবং সফলকামদের পথ প্রদর্শক। (আল মুস্তাদরাক-হাকেম ৩:১৩৮,আল মানাকিব-ইবনুল মাগাযেলী ১০৪/১৪৬)

২০. নাজাত দানকারী

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

حُبُّ عَلِيٍّ بَرَاءَةٌ مِنَ النَّارِ.

আলীর প্রতি ভালোবাসা আগুন থেকে মুক্তির কারণ। (আল ফেরদৌস ২:১৪২/২৭২৩)

২১. ঈমানে সর্বাপেক্ষা অবিচল

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

عَلِيٌّ الصِّدِّيقُ الْاَكْبَرُ، وَ فَارُوقُ هَذِهِ الْاُمَّةِ، وَ يَعْسُوبُ الْمُؤْمِنِينَ.

আলী ঈমানে সর্বাপেক্ষা দৃঢ়পদ,উম্মতের মধ্যে হক ও বাতিলে পার্থক্যকারী আর মুমিনদের কর্তা। (কানযুল উম্মাল ১১:৬১৬/৩২৯৯০,আল মু’ জামুল কাবীর-তাবারানী ৬:২৬৯/৬১৮৪)

২২. তাঁকে অভিসম্পাত করো না

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেনঃ

مَنْ سَبَّ عَلِيّاً فَقَدْ سَبَّنِي.

যে ব্যক্তি আলীকে গালমন্দ করে সে যেন আমাকেই গালি দিল। (মুখতাসারু তারীখে দামেস্ক– ইবনে মাঞ্জুর ১৭:৩৬৬,ফাযায়েলুস সাহাবা ২:৫৯৪/১০১১,খাসায়েসে নাসায়ী :২৪,আল মুস্তাদরাক-হাকেম ৩:১২১,মানাকিবে খারেযমী : ৮২)