ইমাম হুসাইন (আ.) এর জারী মোবারক ষড়ভুজ হওয়ার কারণ কি?

ইমাম হুসাইন (আ.) এর জারী মোবারকের আকৃতি অন্যান্য ইমামদের তুলনায় পৃথক। এ প্রশ্নের উত্তরে বিভিন্ন রেওয়ায়েত বর্ণিত হয়েছে। শেইখ মুফিদ (রহ.) তার আল ইরশাদ নামক গ্রন্থে লিখেছেন যে, ইমাম হুসাইন (আ.) এর কবরের পায়ের অংশে বণী হাশিমের ১৭ জনকে দাফন করা হয়েছে।

ইমাম হুসাইন (আ.) এর জারী মোবারক ষড়ভুজ হওয়ার কারণ কি?

hussain, mohammad, imam mahdi, সিফফিন, জামালের যুদ্ধ, নারওয়ানের যুদ্ধ, খলিফা, খেলাফত, ইমামত, আলী, সিদ্দীক, ফারুক, মোর্তযা, বদর, ওহদ, খন্দক, খায়বার, বণী Shia, Sunni, Islam, Quran, Karbala, najaf, kufa, mashad, samera, madina, makka, jannatul baqi, kazmain, ali, Fatima, hasan, সাকিফা, বণী সায়াদা, সাহাবী, হিজবুল্লাহ, ইসরাইল, ড্রোন, বিমান, হাসান নাসরুল্লাহ , লেবানন, ইরান,  চীন, মালয়েশিয়া,  স্যাটেলাইট, কুয়ালালামপুর, বেইজিং, ভিয়েতনাম, মার্কিন, গোয়েন্দা, ইরাক, সিরিয়া, মিশর, আল কায়েদা, তাকফিরী, ইখওয়ানুল মুসলেমিন, বাংলাদেশ, ভারত, জিহাদ, ফিলিস্তিন, ইহুদি, গাজা, শহীদ, জিহাদ, ক্ষেপণাস্ত্র, দূতাবাস, সৌদি আরব , কুয়েত, রাশিয়া, ফ্রান্স, ব্রিটেন, আমেরিকা, ভিয়েনা, পরমাণু, বাহারাইন, আফগানিস্থান, থাইল্যান্ড, হজরত ফাতিমা, মার্জিয়া, সিদ্দিকা, মোহাদ্দেসা, বাতুল, উম্মে আবিহা, যাহরা, মুবারেকা, যাকিয়া, তাহেরা, রাযিয়া, জিহাদুন নিকাহ, পোপ, পাদ্রি, বাইতুল মোকাদ্দাস, ওহাবী, সালাফি, মুফতি, ড্রোন, পাকিস্থান, এজিদ, মাবিয়া, আবু সুফিয়ান, আলী আকবর, হুসাইন,

এস, এ, এ

ইমাম হুসাইন (আ.) এর জারী মোবারকের আকৃতি অন্যান্য ইমামদের তুলনায় পৃথক। এ প্রশ্নের উত্তরে বিভিন্ন রেওয়ায়েত বর্ণিত হয়েছে। শেইখ মুফিদ (রহ.) তার আল ইরশাদ নামক গ্রন্থে লিখেছেন যে, ইমাম হুসাইন (আ.) এর কবরের পায়ের অংশে বণী হাশিমের ১৭ জনকে দাফন করা হয়েছে। কিন্তু বর্তমানে তাদের কবরের কোন চিহ্ন অবশিষ্ট নেই। কিন্তু ইমাম হুসাইন (আ.) এর যিয়ারতকারীরা তাদেরকে উদ্দেশ্যে করে যিয়ারত পাঠ করেন। হজরত আলী আকবর (আ.) ও হচ্ছেন তাদের মধ্যে একজন। যাকে ইমাম হুসাইন (আ.) এর সবচেয়ে কাছে দাফন করা হয়েছে।

কামেলুয যিয়ারত নামক গ্রন্থে বর্ণিত হয়েছে ইমাম জয়নুল আবেদীন (আ.) কারবালার ঘটনার পরে অলৌকিকভাবে কারবালাতে আসেন এবং বণী আসাদের সাহায্যে নেন এবং যেহেতু মাথা এবং শরীরের সনাক্তকরণ ছিল একটি সমস্যা ছিল কিন্তু ইমাম জয়নুল আবেদীন (আ.) এ সমস্যার সমাধান করেন এবং শহীদদের সনাক্ত করেন। তিনি ইমাম হুসাইন (আ.) এর পবিত্র লাশের কাছে যান এবং একাই তাঁকে দাফন করেন এবং বলেনঃ কেউ কি অছে যে আমাকে সাহায্য করবে। তারপর তিনি ইমাম (আ.) এর কবরের উপরে লিখে দেনঃ ইনি হচ্ছেন সেই হুসাইন যাকে তৃষ্ঞার্ত এবং অহসায় অবস্থায় শহীদ করা হয়।

তিনি ইমাম হুসাইন (আ.) কে দাফন করার পরে তাঁর চাচা হজরত আব্বাস (আ.) এর পবিত্র লাশের কাছে যান এবং তাঁকেও তিনি একাই দাফন করেন। তারপর তিনি বণী আসাদের লোকদের আরো দুটি কবর খোঁড়ার নির্দেশ দেন একটি কবরে বণী হাশিমের সদস্যদের এবং অন্যটিতে ইমাম হুসাইন (আ.) এর সন্তান হজরত আলী আকবর (আ.) লাশকে দাফন করেন।

ইমাম জাফর সাদিক্ব (আ.) এর সম্পর্কে আব্দুল্লাহ বিন হাম্মাদ বাসরীকে বলেনঃ ইমাম হুসাইন (আ.) কে অসহায় অবস্থায় শহীদ করা হয় এবং তার সন্তান হজরত আলী আকবর (আ.) এর লাশকে তাঁর পায়ের কাছে দাফন করা হয় যে এ কথা শুনে সে ক্রন্দন করে, যে তাঁর যিয়ারত করে সে ইমাম (আ.) এর জন্য দুঃখ প্রকাশ করে এবং যে তাঁর যিয়ারত করতে না পারে তার অন্তর পোড়ে।
সুতরাং ইমাম হুসাইন (আ.) এর সন্তান হজরত আলী আকবর (আ.) কে তাঁর পায়ের কাছে দাফন করার কারণে ইমাম হুসাইন (আ.) এর জারী মোবারককে ষড়ভুজ আকৃতিতে তৈরী করা হয়েছে।