নামাজে ওয়াহসাতে কবর

নামাজে ওয়াহসাতে কবর

নামাজে ওয়াহসাতে কবর

নামাজে ওয়াহসাতে কবর, ওয়াহসাতে কবর, মৃত ব্যাক্তি, মরা মানুষ, মাইয়াত, কবর, মৃত্যু,

এস, এ, এ 

মৃত ব্যাক্তিকে দাফনের পর কবরের প্রথম রাতে ওয়াহসাতে কবরের নামাজটি পড়া ‍হচ্ছে মুস্তাহাব। কেননা কবরের প্রথম রাতটি হচ্ছে মৃত ব্যাক্তির জন্য আতঙ্কজনিত এবং সবচেয়ে কঠিন একটি রাত। তাই মৃত ব্যাক্তির জন্য উক্ত নামাজটি পড়া হচ্ছে উত্তম। নামাজটি পড়ার পদ্ধতি হচ্ছে পদ্ধতি হচ্ছে নিন্মরূপ:

নামাজটি হচ্ছে দুই রাকাত। প্রথম রাকাতে সুরা ফাতেহার পরে একবার আয়াতুল কুরসি এবং দ্বিতিয় রাকাতে সুরা ফাতেহার পরে ১০ বার সুরা কদর। নামাজান্তে নিন্মোক্ত দোয়াটি পাঠ করতে হবে:

اللّهُمَّ صَلِّ عَلىٰ مُحَمَّدٍ و آلِ مُحَمَّدٍ وَ ابْعَثْ ثَوابَها إلىٰ قَبْرِ فُلانٍ

(فُلانٍ) শব্দের স্থানে মৃত ব্যাক্তি নাম উচ্চারণ করতে হবে।

নামাজটি পড়ার জন্য প্রয়োজনিয় সুরা:

আয়াতুল কুরসি:

الله لا اله إ لاّ هوَ الحیُّ القیُّومُ لا تَا خذُهُ سِنَهٌ وَ لا نَومٌ لَهُ ما فِی السَّماواتِ وَ ما فِی الأَرضِ مَن ذَا الَّذی یَشفَعُ عِندَهُ إلا بِإذنِهِ یَعلَمَ ما بَینَ أَیدِیهمِ وَ ما خَلفَهُم وَ لا یُحیطونَ بِشَیءٍ مِن عِلمِهِ إلا بِما شاءَ وَسِعَ کُرسِیُّهُ السَّماواتِ و الأرض وَ لا یَؤدُهُ حِفظُهُما وَ هوَ العَلیُّ العَظیم

لا إکراهَ فِی الدَّین قَد تَبَیَّنَ الرُّشدُ مِنَ الغَیَّ فَمَن یَکفُر بِالطَّاغوتِ وَ یُؤمِن بِالله فَقَد استَمسَکَ بِالعُروَهِ الوُثقی لاَنفِصامَ لَها و الله سَمِیعٌ عَلِیمٌ

الله وَلِیُّ الَّذین آمَنوا یُخرِجُهُم مِنَ الظُّلُماتِ إِلی النُّور وَ الُّذینَ کَفَروا أولیاؤُهُمُ الطَّاغوتُ یُخرِجُونَهُم مِنَ النُّور إِلَی الظُّلُماتِ أُولئِکَ أصحابُ النَّارِ هُم فِیها خالِدُونَ.

সুরা কদর:

بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَنِ الرَّحِيمِ

إِنَّا أَنزَلْنَاهُ فِي لَيْلَةِ الْقَدْرِ

وَمَا أَدْرَاكَ مَا لَيْلَةُ الْقَدْرِ

لَيْلَةُ الْقَدْرِ خَيْرٌ مِّنْ أَلْفِ شَهْرٍ

تَنَزَّلُ الْمَلَائِكَةُ وَالرُّوحُ فِيهَا بِإِذْنِ رَبِّهِم مِّن كُلِّ أَمْرٍ

سَلَامٌ هِيَ حَتَّى مَطْلَعِ الْفَجْرِ