হজরত আলী (আ.) কে অবমাননাকারীর অযৌক্তিক দলিল উপস্থাপনের মাধ্যমে সরাসরি ফিল্ম সম্প্রচার

ওহাবীদের নেটওর্য়াকগুলোর মূল কাজ সমূহের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে ইসলামের কালো ইতিহাসের কিছু মানুষের গুণগাণ করা যেমনঃ ইয়াজিদ, ইবনে তাইমিয়া। যদিও আহলে সুন্নাতের বড় বড় আলেম যারা ইবনে তাইমিয়াকে কোরআনের বিধান থেকে পৃথক এক ব্যাক্তি বলে মনে করেন এবং পূর্বে আহলে স

হজরত আলী (আ.) কে অবমাননাকারীর অযৌক্তিক দলিল উপস্থাপনের মাধ্যমে সরাসরি ফিল্ম সম্প্রচার

টিভি শিয়া রিপোর্টঃ ওহাবীদের নেটওর্য়াকগুলোর মূল কাজ সমূহের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে ইসলামের কালো ইতিহাসের কিছু মানুষের গুণগাণ করা যেমনঃ ইয়াজিদ, ইবনে তাইমিয়া। যদিও আহলে সুন্নাতের বড় বড় আলেম যারা ইবনে তাইমিয়াকে কোরআনের বিধান থেকে পৃথক এক ব্যাক্তি বলে মনে করেন এবং পূর্বে আহলে সুন্নাতের বড় বড় আলেমেরা ইবনে তাইমিয়ার মতবাদকে বাতিল বলে ঘোষণা করেছেন এবং তাকে উল্লেখ করে একাধিক পুস্তক রচনা করেছেন। কিন্তু তারা চিন্তাও করতে পারেনি যে, এমন এক সময় আসবে যখন ওহাবীদের মতো এক গোষ্ঠি ইবনে তাইমিয়াকে পাক পবিত্র বলে মেনে নিবে। ওহাবীরা শুধু তাইমিয়াকেই না বরং তারা ইতিহাসের কালো অধ্যায় রচনাকারীদেকেও যেমনঃ ইয়াযিদ, ওমরে আস এর মতো জঘণ্য ব্যাক্তিদেরকে ভাল বলে প্রমাণের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।
ওহাবী নেওয়ার্ক প্রচার করছে যে ইবনে তাইমীয়া আহলে বাইত (আ.) এর সম্পর্কে অসংযত কথার্বতা বলতো, তাকে তারা আহলে বাইতের একজন সাচ্চা ভক্ত বলে প্রচার করছে। আহলে সুন্নাত মিনহাজুল সুন্নাহ নামক গ্রন্থ থেকে প্রমাণ করেছে যে, সে ছিল আহলে বাইত (আ.) এর একজন ঘোর বিরোধি ছিল। তারা আরো বলেছে আমরা ইবনে তাইমিয়ার আকিদাকে মাইক্রোসকোপের নিচে রেখে দেখলে বুঝতে পারবো যে, সে আহলে বাইত (আ.) এর ভক্ত ছিল না বরং সে ছিল আহলে বাইতের ঘোর বিরোধি। ইবনে তাইমিয়ার মিনহাজুল সুন্নাহ নামক পুস্তকের ৩২৯ নং পৃষ্ঠার প্রতি দৃষ্টিপাত করলেই আমাদের কাছে বিষয়টি স্পষ্ট হয়ে যাবে।