ওই শহীদে কারবালা

কারবালা, ইমাম হুসাইন, এজিদ,  নওহা, জয়নাব, হজরত আব্বাস, আলী আকবর, মহরম,
ইয়া কারবালা, সালামুন ইয়া আশূরা ইয়া শহীদে কারবালা, ওই শহীদে কারবালা, বাড়ায় দিলের জ্বালা অশ্রুসজল নয়নে, কাঁদে জিন ও ইনসানে। ইয়াযীদ ক্ষমতার লোভে, দিলো ইসলাম ছেড়ে বাইয়াত হতে বলে, পাষাণ ওই কাফিরে ইমামজী বাইয়াত না হয়ে, গেলেন মদীনা ছেড়ে মক্কাতে বাকি

ওই শহীদে কারবালা

ইয়া কারবালা, সালামুন ইয়া আশূরা
ইয়া শহীদে কারবালা,
ওই শহীদে কারবালা, বাড়ায় দিলের জ্বালা
অশ্রুসজল নয়নে, কাঁদে জিন ও ইনসানে।

ইয়াযীদ ক্ষমতার লোভে, দিলো ইসলাম ছেড়ে
বাইয়াত হতে বলে, পাষাণ ওই কাফিরে
ইমামজী বাইয়াত না হয়ে, গেলেন মদীনা ছেড়ে
মক্কাতে বাকি জীবন, কাটাবেন বন্দেগী করে।

কুফাবাসী করে চিঠি প্রেরণ, করবে কুরবান জীবন
চিঠি পেয়ে ইমামজী, কুফাতে করেন গমন
ওই বেঈমান কুফাবাসী, আহলে নবীর দুশমন
প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করে, ইয়াযীদরে করে আপন।

ইমাম হুসাইন, পৌঁছান ওই কারবালায়
নানাজীর বাণী মুবারক, স্মৃতিতে এসে যায়
জালিম ইয়াযীদ বাহিনী, হুসাইনী কাফেলা আটকায়
কূটকৌশল করে ওরা, যুদ্ধ করতে চায়।

অর্ধহারে, অনাহারে কাটান দিন ও রাত
পাশেই রয়েছে হায়! বিশাল নদী ফোরাত
পানি পান করতে দেয়না, ওই ইয়াযীদ বাহিনী
পানি তৃষ্ণায় আহাজারি, করেন আহলে বাইত।

হাতে তরবারি নিয়ে, ইমামজী যান এগিয়ে
দুশমনকে খতম করে, জাহান্নামে দেন পাঠিয়ে
যুদ্ধ করেন ইমামজী, রসূলী ফায়েজ নিয়ে
দুঃখ কষ্ট যাতনা, কারবালা দেয় বাড়িয়ে।

ইমামজীকে কারবালায়, তীর মারে হায়!
তরবারির আঘাত করে, মস্তক নিয়ে যায়
আহলে নবীর আশিক, কে আছো দুনিয়ায়
প্রতিশোধ নিতে চলো, আজই ওই কারবালায়।
সূত্রঃ ইন্টারনেট

اشتراک گذاری: 

নতুন কমেন্ট যুক্ত করুন

Fill in the blank.